ঢাকা ০৯:৩১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম ::
জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হতে চায় ফিলিস্তিন; ফিলিস্তিন প্রতিনিধি দলের প্রধান রিয়াদ মনসুর সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত ভারতের শিলচরের সাহিত্য-সংস্কৃতি কর্মীদের সিলেটে সৌজন্য সাক্ষাৎ ছড়াকার সুফিয়ান আহমদ চৌধুরী ছড়াশিল্পের অনন্য এক দিকপাল: প্রফেসর হারুনুর রশীদ ডাক্তারের পরামর্শে চার মাস কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন না বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ বিবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সাইদুর রহমান রেনুর পিতার নামাজে জানাজা আজ দরগা মাসজিদে সিলেটে ডিবি’র জুয়া বিরোধী বিশেষ অভিযানে জুয়া খেলার সামগ্রীসহ ৬ জুয়ারি আটক সিলেটে ডিবি পুলিশের পৃথক দুটি অভিযানে জুয়া খেলার সামগ্রীসহ ২২ জন জুয়ারি গ্রেফতার গাজীপুরের কোনাবাড়িতে ঝুট গুদামে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচ ইউনিট গাজীপুরে পারিবারিক বিরোধের জেরে মেয়েকে বাবার হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা

পনের বছরে শেখ হাসিনা আমাদের দেশের স্ট্যাটাস পরিবর্তন করে দিয়েছেন: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ১০:১৬:৩৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৪৭ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশের স্ট্যাটাস গ্লোবাল স্টেজে যাওয়ায় পাশ্চাত্যে সমস্যা তৈরি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত।

রোববার (১১ জানুয়ারি) সংসদের বৈঠকে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি।  

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘গত ১৫ বছরে শেখ হাসিনা আমাদের দেশের স্ট্যাটাস পরিবর্তন করে দিয়েছেন। দেশকে তিনি গ্লোবাল স্ট্যাটাসে নিয়ে গেছেন।

বাংলাদেশের স্ট্যাটাস যখন গ্লোবাল স্টেজে পরিণত হচ্ছে তখন পাশ্চাত্যের মধ্যে কিছু একটা সমস্যা তৈরি করেছে। দক্ষিণ এশিয়ার একজন নেতৃত্ব এত শক্তিশালী হয়ে উঠছে। কীভাবে একটি দেশকে একটি ট্রান্সফরমেশনের মধ্যে নিয়ে যাচ্ছেন। তখন বিভিন্ন ধরনের দুরভিসন্ধিমূলক কার্যক্রম আমরা দেখছি। এখন তাঁরা নিয়ে আসে অন্যান্য বিষয়। যেহেতু দারিদ্র্য বিমোচন হয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার হার বেড়ে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য সুরক্ষা হচ্ছে। তাঁরা নিয়ে আসছে ভোটের অধিকার, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা, মানবাধিকার—এসব বিষয়। আমরা যদি এখানেও দেখি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এগুলোর সবই নিশ্চিত করেছেন।

পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, বঙ্গবন্ধু টানেল ইত্যাদি উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী অবিশ্বাস্য গোল সেট করেন এবং তা বাস্তবায়ন করেন। এসব দৃশ্যমান উন্নয়ন ছাড়াও আমাদের অদৃশ্য যে উন্নয়ন হয়েছে তা হলো আমাদের সাহস। আমাদের সাহস অনেক বেড়ে গেছে। স্বপ্ন দেখার দুঃসাহস বেড়ে গেছে। বিশ্বকে আমরা বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দিয়েছি যে-আমরা নিজের টাকায় পদ্মা সেতু তৈরি করতে পারি। আমাদের নদীর তল দেশে টানেল আছে।

সুশীল সমাজের সমালোচনা করে মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেন, আমাদের সিভিল সোসাইটি সরকারের অগ্রগতি সামনে আনেন না। বৃহত্তর পরিসরে সরকারের অর্জন ঢেকে রেখে সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি থেকে সরকারকে আক্রমণ করার চেষ্টা করছে। তাদের এই তথ্য সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আমাদের এক ধরনের লড়াই আছে। এটি চলবে। সেখানে আমরা জয়ী হব।

রাষ্ট্রপতি ভাষণের ওপর আরও আলোচনায় অংশ নেন, সরকারি দলের সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার, এইচ, এম বদিউজ্জামান, বেনজির আহমেদ, এবিএম শহিদুল ইসলাম, ছানুয়ার হোসেন ছানু, মো. মোহিত উর রহমান, আবদুল্লাহ আল কায়সার, মতিয়ার রহমান, আবু জাফর মো. শফি উদ্দিন, স্বতন্ত্র সদস্য সালাউদ্দিন মাহমুদ ও এস এ কে একরামুজ্জামান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

পনের বছরে শেখ হাসিনা আমাদের দেশের স্ট্যাটাস পরিবর্তন করে দিয়েছেন: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১০:১৬:৩৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বাংলাদেশের স্ট্যাটাস গ্লোবাল স্টেজে যাওয়ায় পাশ্চাত্যে সমস্যা তৈরি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত।

রোববার (১১ জানুয়ারি) সংসদের বৈঠকে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি।  

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘গত ১৫ বছরে শেখ হাসিনা আমাদের দেশের স্ট্যাটাস পরিবর্তন করে দিয়েছেন। দেশকে তিনি গ্লোবাল স্ট্যাটাসে নিয়ে গেছেন।

বাংলাদেশের স্ট্যাটাস যখন গ্লোবাল স্টেজে পরিণত হচ্ছে তখন পাশ্চাত্যের মধ্যে কিছু একটা সমস্যা তৈরি করেছে। দক্ষিণ এশিয়ার একজন নেতৃত্ব এত শক্তিশালী হয়ে উঠছে। কীভাবে একটি দেশকে একটি ট্রান্সফরমেশনের মধ্যে নিয়ে যাচ্ছেন। তখন বিভিন্ন ধরনের দুরভিসন্ধিমূলক কার্যক্রম আমরা দেখছি। এখন তাঁরা নিয়ে আসে অন্যান্য বিষয়। যেহেতু দারিদ্র্য বিমোচন হয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার হার বেড়ে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য সুরক্ষা হচ্ছে। তাঁরা নিয়ে আসছে ভোটের অধিকার, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা, মানবাধিকার—এসব বিষয়। আমরা যদি এখানেও দেখি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এগুলোর সবই নিশ্চিত করেছেন।

পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, বঙ্গবন্ধু টানেল ইত্যাদি উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী অবিশ্বাস্য গোল সেট করেন এবং তা বাস্তবায়ন করেন। এসব দৃশ্যমান উন্নয়ন ছাড়াও আমাদের অদৃশ্য যে উন্নয়ন হয়েছে তা হলো আমাদের সাহস। আমাদের সাহস অনেক বেড়ে গেছে। স্বপ্ন দেখার দুঃসাহস বেড়ে গেছে। বিশ্বকে আমরা বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দিয়েছি যে-আমরা নিজের টাকায় পদ্মা সেতু তৈরি করতে পারি। আমাদের নদীর তল দেশে টানেল আছে।

সুশীল সমাজের সমালোচনা করে মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেন, আমাদের সিভিল সোসাইটি সরকারের অগ্রগতি সামনে আনেন না। বৃহত্তর পরিসরে সরকারের অর্জন ঢেকে রেখে সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি থেকে সরকারকে আক্রমণ করার চেষ্টা করছে। তাদের এই তথ্য সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আমাদের এক ধরনের লড়াই আছে। এটি চলবে। সেখানে আমরা জয়ী হব।

রাষ্ট্রপতি ভাষণের ওপর আরও আলোচনায় অংশ নেন, সরকারি দলের সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার, এইচ, এম বদিউজ্জামান, বেনজির আহমেদ, এবিএম শহিদুল ইসলাম, ছানুয়ার হোসেন ছানু, মো. মোহিত উর রহমান, আবদুল্লাহ আল কায়সার, মতিয়ার রহমান, আবু জাফর মো. শফি উদ্দিন, স্বতন্ত্র সদস্য সালাউদ্দিন মাহমুদ ও এস এ কে একরামুজ্জামান।