ঢাকা ০৯:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম ::
গার্ল গাইড্স এসোসিয়েশন সিলেট অঞ্চলের উদ্যোগে বিশ্ব চিন্তা দিবস পালন শুধু রোহিঙ্গা না, পুরো বার্মা একটা জটিল জিনিস ডয়চে ভেলের এক অনুষ্ঠানে ড. ইউনূস ছাতকে সুবিধা বঞ্চিত একজনকে রোটারী ক্লাব অব সিলেট মিডটাউনের ঘর হস্থান্তর মুরারিচাঁদ কলেজের ইতিহাস ও ঐতিহ্য অনুষঙ্গ এবং প্রাসঙ্গিক ভাবনা শীর্ষক মুক্ত আলোচনা জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হতে চায় ফিলিস্তিন; ফিলিস্তিন প্রতিনিধি দলের প্রধান রিয়াদ মনসুর সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত ভারতের শিলচরের সাহিত্য-সংস্কৃতি কর্মীদের সিলেটে সৌজন্য সাক্ষাৎ ছড়াকার সুফিয়ান আহমদ চৌধুরী ছড়াশিল্পের অনন্য এক দিকপাল: প্রফেসর হারুনুর রশীদ ডাক্তারের পরামর্শে চার মাস কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন না বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ বিবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সাইদুর রহমান রেনুর পিতার নামাজে জানাজা আজ দরগা মাসজিদে

দুয়োধ্বনিতে বইমেলা প্রাঙ্গণ ঘেকে বেড়িয়ে যেতে বাধ্য হলেন মুশতাক-তিশা দম্পতি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৩৩:৪৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৪২ বার পড়া হয়েছে

বইমেলায় নিজের প্রকাশিত বই নিয়ে বেশ প্রচারেই ছিলেন খন্দকার মুশতাক আহমেদ ও তার স্ত্রী তিশা। অনেকেই আশপাশে দাঁড়িয়ে তোলা ছবি ছাড়ছিলেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। স্যোসাল প্লাটফর্মে ভিউ বাড়াতে অনেকে আবার নিচ্ছিলেন সাক্ষাৎকারও। সেই মুশতাক-তিশাকে দুয়োধ্বনি দিয়ে বইমেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করলেন মেলায় আসা পাঠক-ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। 

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল পৌনে ৪ টার দিকে ঘটে এ ঘটনা। এরআগে বিকেল ৩ টা নাগাদ বইমেলার মিজান পাবলিশার্সে আসেন এ দম্পতি। তাদের দেখতে রীতিমতো ভিড় জমাচ্ছিলেন মেলায় আসা দর্শনার্থীদের অনেকে। সেখানে ছিল মুশতাক আহমেদের লেখা বই ‘তিশার ভালোবাসা’ ও ‘তিশা অ্যান্ড মুশতাক’। 

‘তিশার ভালোবাসা’ বইটি হাতে নিয়ে পাঠকদের বই কিনতে উৎসাহিত করছিলেন মুশতাক তিশা দম্পতি। হঠাৎ একদল দর্শনার্থী তাদেরকে দুয়োধ্বনি দিয়ে তাড়া করে। এসময় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যগণ তাদেরকে নিরাপত্তা বেষ্টনি দিয়ে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের গেইট দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে যেতে সাহায্য করে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা এব্যাপারে বলেন, তারা আমাদের সমাজে লজ্জাজনক একটি সংস্কৃতিকে প্রতিষ্ঠা করছে। তার ওপর বই লিখে ব্যাপারটা ছড়িয়ে দিচ্ছে। এজন্যই সচেতন মানুষগণ তাদেরকে তিরস্কার করে তাড়িয়ে দিয়েছে।  

মেলায় আসা দর্শনার্থী অন্য একজন বলেন, বর্তমান সোশাল মিডিয়ার যুগে অনেক মানুষই ভাইরাল হচ্ছে। এক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, ভালো কাজ করে ভাইরাল হওয়ার তুলনায় নেতিবাচক কাজ করে ভাইরাল হওয়ার সংখ্যাই বেশি। আমরা সাধারণ মানুষেরা মনে করি, এ ধরনের বইয়ের মাধ্যমে সমাজে নেতিবাচকতা আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। মূলত এসব কারণেই তাদের প্রতি মানুষের এক ধরণের ক্ষোভ কাজ করছে। এবং আজকের এই ঘটনার মাধ্যমে তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটল।

সম্প্রতি রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য খন্দকার মুশতাক আহমেদ একই কলেজের শিক্ষার্থী সিনথিয়া ইসলাম তিশাকে বিয়ে করে আলোচনায় আসেন। ভালোবেসে একে অপরকে বিয়ে করেন তারা। তাদের বিয়ের খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  ভাইরাল হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

দুয়োধ্বনিতে বইমেলা প্রাঙ্গণ ঘেকে বেড়িয়ে যেতে বাধ্য হলেন মুশতাক-তিশা দম্পতি

আপডেট সময় : ১২:৩৩:৪৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বইমেলায় নিজের প্রকাশিত বই নিয়ে বেশ প্রচারেই ছিলেন খন্দকার মুশতাক আহমেদ ও তার স্ত্রী তিশা। অনেকেই আশপাশে দাঁড়িয়ে তোলা ছবি ছাড়ছিলেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। স্যোসাল প্লাটফর্মে ভিউ বাড়াতে অনেকে আবার নিচ্ছিলেন সাক্ষাৎকারও। সেই মুশতাক-তিশাকে দুয়োধ্বনি দিয়ে বইমেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করলেন মেলায় আসা পাঠক-ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। 

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল পৌনে ৪ টার দিকে ঘটে এ ঘটনা। এরআগে বিকেল ৩ টা নাগাদ বইমেলার মিজান পাবলিশার্সে আসেন এ দম্পতি। তাদের দেখতে রীতিমতো ভিড় জমাচ্ছিলেন মেলায় আসা দর্শনার্থীদের অনেকে। সেখানে ছিল মুশতাক আহমেদের লেখা বই ‘তিশার ভালোবাসা’ ও ‘তিশা অ্যান্ড মুশতাক’। 

‘তিশার ভালোবাসা’ বইটি হাতে নিয়ে পাঠকদের বই কিনতে উৎসাহিত করছিলেন মুশতাক তিশা দম্পতি। হঠাৎ একদল দর্শনার্থী তাদেরকে দুয়োধ্বনি দিয়ে তাড়া করে। এসময় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যগণ তাদেরকে নিরাপত্তা বেষ্টনি দিয়ে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের গেইট দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে যেতে সাহায্য করে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা এব্যাপারে বলেন, তারা আমাদের সমাজে লজ্জাজনক একটি সংস্কৃতিকে প্রতিষ্ঠা করছে। তার ওপর বই লিখে ব্যাপারটা ছড়িয়ে দিচ্ছে। এজন্যই সচেতন মানুষগণ তাদেরকে তিরস্কার করে তাড়িয়ে দিয়েছে।  

মেলায় আসা দর্শনার্থী অন্য একজন বলেন, বর্তমান সোশাল মিডিয়ার যুগে অনেক মানুষই ভাইরাল হচ্ছে। এক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, ভালো কাজ করে ভাইরাল হওয়ার তুলনায় নেতিবাচক কাজ করে ভাইরাল হওয়ার সংখ্যাই বেশি। আমরা সাধারণ মানুষেরা মনে করি, এ ধরনের বইয়ের মাধ্যমে সমাজে নেতিবাচকতা আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। মূলত এসব কারণেই তাদের প্রতি মানুষের এক ধরণের ক্ষোভ কাজ করছে। এবং আজকের এই ঘটনার মাধ্যমে তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটল।

সম্প্রতি রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য খন্দকার মুশতাক আহমেদ একই কলেজের শিক্ষার্থী সিনথিয়া ইসলাম তিশাকে বিয়ে করে আলোচনায় আসেন। ভালোবেসে একে অপরকে বিয়ে করেন তারা। তাদের বিয়ের খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  ভাইরাল হয়।