ঢাকা ০৭:৪৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম ::
জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হতে চায় ফিলিস্তিন; ফিলিস্তিন প্রতিনিধি দলের প্রধান রিয়াদ মনসুর সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত ভারতের শিলচরের সাহিত্য-সংস্কৃতি কর্মীদের সিলেটে সৌজন্য সাক্ষাৎ ছড়াকার সুফিয়ান আহমদ চৌধুরী ছড়াশিল্পের অনন্য এক দিকপাল: প্রফেসর হারুনুর রশীদ ডাক্তারের পরামর্শে চার মাস কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন না বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ বিবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সাইদুর রহমান রেনুর পিতার নামাজে জানাজা আজ দরগা মাসজিদে সিলেটে ডিবি’র জুয়া বিরোধী বিশেষ অভিযানে জুয়া খেলার সামগ্রীসহ ৬ জুয়ারি আটক সিলেটে ডিবি পুলিশের পৃথক দুটি অভিযানে জুয়া খেলার সামগ্রীসহ ২২ জন জুয়ারি গ্রেফতার গাজীপুরের কোনাবাড়িতে ঝুট গুদামে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচ ইউনিট গাজীপুরে পারিবারিক বিরোধের জেরে মেয়েকে বাবার হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা

হিমঘরে পড়ে আছে ২৮৬ বিয়ে করা রাব্বির মরদেহ;লাশ নিতে কেউ আসেনা !

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৫৬:১৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৪ ১৫৪ বার পড়া হয়েছে

প্রতারণা করে ২৮৬টি বিয়ে ও ধর্ষণ মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি জাকির হোসেন রাব্বির (৪৩) মরদেহ হাসপাতাল মর্গের হিমঘরে পড়ে আছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এখনো পর্যন্ত তার কোনো স্বজন মরদেহ নেওয়ার দাবি করেনি।।

এর আগে শনিবার (২০ জানুয়ারি) রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়। মৃত জাকির হোসেন রাব্বি লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা পনির হোসেনের ছেলে।

প্রতারণা ও ধর্ষণের একাধিক মামলা বিচারাধীন থাকায়, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি জীবনযাপন করছিলেন তিনি। জানা গেছে, ১৪ বছরে নানা প্রতারণামূলক কৌশলে ধনাঢ্য পরিবারের ২৮৬ জন নারীকে বিয়ে করে আলোড়ন তুলেছিলেন রাব্বি।

তার নামে একাধিক নারী বিয়ের নামে প্রতারণার মামলা দায়ের করেন। সেই সব মামলায় তিনি বিচারাধীন থাকায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি জীবনযাপন করছিলেন জাকির হোসেন রাব্বি।

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গের ইনচার্জ যতীন কুমার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘মরদেহ মর্গে রয়েছে। জাকির হোসেন রাব্বি জেলখানায় মারা গেছেন। তার স্বজনদের জানানো হয়েছে। মরদেহ এখনো কেউ নেয়নি। স্বজনরা ঢাকায় আসবে, তারপর মরদেহ নিতে পারে।’

পারিবারিক সূত্রের বরাত দিয়ে দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান নান্নু জানান, জীবদ্দশায় জাকির হোসেন রাব্বির নানা প্রতারণামূলক কর্মকাণ্ডের কারণে পরিবারের সদস্যরা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ছিলেন। সে দীর্ঘদিন ধরে পরিবারের সঙ্গে কোনো ধরণের যোগাযোগ রাখেনি। স্বজনদের কয়েকজন ঢাকায় গিয়েছে, তারা মরদেহ দাফনের ব্যবস্থা করবে। মরদেহ এখানে আনবে কিনা এখনো জানা যায়নি।

২০১৯ সালে মিরপুরের এক নারীর করা ধর্ষণ মামলায় জাকির হোসেন রাব্বিকে গ্রেফতার করে তেজগাঁও থানা পুলিশ। তাকে রিমান্ডে নিলে পুলিশ তার জবানবন্দিতে জানতে পারে যে, তিনি শুধু ধর্ষণ নয়, ১৪ বছরে ২৮৬টি বিয়ে করেছেন।

জাকির হোসেন রাব্বিকে হাসপাতালে নিয়ে আসা কারারক্ষী শফিকুল জানান, গত ৩১ ডিসেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে আনা হয়। চিকিৎসায় সুস্থ হলে আবার তাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। গত ১৮ জানুয়ারি কারাগারে পুনরায় অসুস্থ হয়ে পড়লে, তাকে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেলে আনা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

হিমঘরে পড়ে আছে ২৮৬ বিয়ে করা রাব্বির মরদেহ;লাশ নিতে কেউ আসেনা !

আপডেট সময় : ০৬:৫৬:১৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৪

প্রতারণা করে ২৮৬টি বিয়ে ও ধর্ষণ মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি জাকির হোসেন রাব্বির (৪৩) মরদেহ হাসপাতাল মর্গের হিমঘরে পড়ে আছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এখনো পর্যন্ত তার কোনো স্বজন মরদেহ নেওয়ার দাবি করেনি।।

এর আগে শনিবার (২০ জানুয়ারি) রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়। মৃত জাকির হোসেন রাব্বি লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা পনির হোসেনের ছেলে।

প্রতারণা ও ধর্ষণের একাধিক মামলা বিচারাধীন থাকায়, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি জীবনযাপন করছিলেন তিনি। জানা গেছে, ১৪ বছরে নানা প্রতারণামূলক কৌশলে ধনাঢ্য পরিবারের ২৮৬ জন নারীকে বিয়ে করে আলোড়ন তুলেছিলেন রাব্বি।

তার নামে একাধিক নারী বিয়ের নামে প্রতারণার মামলা দায়ের করেন। সেই সব মামলায় তিনি বিচারাধীন থাকায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি জীবনযাপন করছিলেন জাকির হোসেন রাব্বি।

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গের ইনচার্জ যতীন কুমার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘মরদেহ মর্গে রয়েছে। জাকির হোসেন রাব্বি জেলখানায় মারা গেছেন। তার স্বজনদের জানানো হয়েছে। মরদেহ এখনো কেউ নেয়নি। স্বজনরা ঢাকায় আসবে, তারপর মরদেহ নিতে পারে।’

পারিবারিক সূত্রের বরাত দিয়ে দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান নান্নু জানান, জীবদ্দশায় জাকির হোসেন রাব্বির নানা প্রতারণামূলক কর্মকাণ্ডের কারণে পরিবারের সদস্যরা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ছিলেন। সে দীর্ঘদিন ধরে পরিবারের সঙ্গে কোনো ধরণের যোগাযোগ রাখেনি। স্বজনদের কয়েকজন ঢাকায় গিয়েছে, তারা মরদেহ দাফনের ব্যবস্থা করবে। মরদেহ এখানে আনবে কিনা এখনো জানা যায়নি।

২০১৯ সালে মিরপুরের এক নারীর করা ধর্ষণ মামলায় জাকির হোসেন রাব্বিকে গ্রেফতার করে তেজগাঁও থানা পুলিশ। তাকে রিমান্ডে নিলে পুলিশ তার জবানবন্দিতে জানতে পারে যে, তিনি শুধু ধর্ষণ নয়, ১৪ বছরে ২৮৬টি বিয়ে করেছেন।

জাকির হোসেন রাব্বিকে হাসপাতালে নিয়ে আসা কারারক্ষী শফিকুল জানান, গত ৩১ ডিসেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে আনা হয়। চিকিৎসায় সুস্থ হলে আবার তাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। গত ১৮ জানুয়ারি কারাগারে পুনরায় অসুস্থ হয়ে পড়লে, তাকে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেলে আনা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়।