ঢাকা ০৪:৫৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারলো পাষণ্ড স্বামী ইব্রাহিম প্রধান

চাঁদপুর প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৩:৪৬:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ৪২ বার পড়া হয়েছে
Spread the love

চাঁদপুরের মতলবে যৌতুকের জন্য স্ত্রী খাদিজা আক্তারের (২৩) গায়ে শ্যালো ইঞ্জিনের ডিজেল ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা করলো স্বামী ইব্রাহিম প্রধান।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) ঈদুল ফিতরের দিন সকাল ৭টার দিকে ইব্রাহিম তার স্ত্রীর শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) রাতে ঢাকা শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে খাদিজা মারা যান।

অভিযুক্ত ইব্রাহিম শ্যালো ইঞ্জিন চালিত সেচপাম্প চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। তার বাড়ি মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বকচর গ্রামে।

জানা গেছে, চার বছর আগে একই গ্রামের দিনমজুর খোকন মিয়ার মেয়ে খাদিজাকে বিয়ে করে ইব্রাহিম (৩৮)। এরপর থেকেই যৌতুক হিসেবে টাকা দাবি করে খাদিজাকে নির্যাতন করত ইব্রাহিম। ঘটনার দিন সকাল ৭টার দিকে খাদিজার শরীরে ডিজেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ইব্রাহিম। এরপর তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসারত অবস্হায় মারা যান। চিকিৎসকরা জানায়, খাদিজার শরীরের প্রায় ৯০ শতাংশ পুড়ে যায় আগুনে।

বিষয়টি গোপন করে খাদিজার স্বজনদের না জানিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন লাশ দাফন করেন। আজ (রোববার) মেয়ের মৃত্যুর সংবাদ পান খোকন মিয়া। পরে মতলব দক্ষিণ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

খোকন মিয়া বলেন, বিয়ের পর থেকেই খাদিজাকে যৌতুকের জন্য মারধর করতো ইব্রাহিম। এসব নিয়ে অনেকবার সালিশ-বৈঠকও হয়েছে। কিন্তু তার যৌতুক দেওয়ার সামর্থ্য নেই দেখে মেয়েটা মুখ বুঝে সবকিছু সহ্য করে গেছে। তিনি এ ঘটনায় জামাতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

এলাকাবাসী জানায়, এটি ইব্রাহিমের তৃতীয় বিয়ে। যৌতুকের জন্য নির্যাতন সইতে না পেরে আগের দুই স্ত্রী পালিয়ে বেঁচেছেন। শেষরক্ষা হয়নি হতদরিদ্র বাবার মেয়ে খাদিজার।

মতলব দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিপন বালা বলেন, খাদিজার শাশুড়ি যায়েদা খাতুনকে (৬৭) বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। পলাতক ইব্রাহিমকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারলো পাষণ্ড স্বামী ইব্রাহিম প্রধান

আপডেট সময় : ০৩:৪৬:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
Spread the love

চাঁদপুরের মতলবে যৌতুকের জন্য স্ত্রী খাদিজা আক্তারের (২৩) গায়ে শ্যালো ইঞ্জিনের ডিজেল ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা করলো স্বামী ইব্রাহিম প্রধান।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) ঈদুল ফিতরের দিন সকাল ৭টার দিকে ইব্রাহিম তার স্ত্রীর শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) রাতে ঢাকা শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে খাদিজা মারা যান।

অভিযুক্ত ইব্রাহিম শ্যালো ইঞ্জিন চালিত সেচপাম্প চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। তার বাড়ি মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বকচর গ্রামে।

জানা গেছে, চার বছর আগে একই গ্রামের দিনমজুর খোকন মিয়ার মেয়ে খাদিজাকে বিয়ে করে ইব্রাহিম (৩৮)। এরপর থেকেই যৌতুক হিসেবে টাকা দাবি করে খাদিজাকে নির্যাতন করত ইব্রাহিম। ঘটনার দিন সকাল ৭টার দিকে খাদিজার শরীরে ডিজেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ইব্রাহিম। এরপর তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসারত অবস্হায় মারা যান। চিকিৎসকরা জানায়, খাদিজার শরীরের প্রায় ৯০ শতাংশ পুড়ে যায় আগুনে।

বিষয়টি গোপন করে খাদিজার স্বজনদের না জানিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন লাশ দাফন করেন। আজ (রোববার) মেয়ের মৃত্যুর সংবাদ পান খোকন মিয়া। পরে মতলব দক্ষিণ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

খোকন মিয়া বলেন, বিয়ের পর থেকেই খাদিজাকে যৌতুকের জন্য মারধর করতো ইব্রাহিম। এসব নিয়ে অনেকবার সালিশ-বৈঠকও হয়েছে। কিন্তু তার যৌতুক দেওয়ার সামর্থ্য নেই দেখে মেয়েটা মুখ বুঝে সবকিছু সহ্য করে গেছে। তিনি এ ঘটনায় জামাতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

এলাকাবাসী জানায়, এটি ইব্রাহিমের তৃতীয় বিয়ে। যৌতুকের জন্য নির্যাতন সইতে না পেরে আগের দুই স্ত্রী পালিয়ে বেঁচেছেন। শেষরক্ষা হয়নি হতদরিদ্র বাবার মেয়ে খাদিজার।

মতলব দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিপন বালা বলেন, খাদিজার শাশুড়ি যায়েদা খাতুনকে (৬৭) বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। পলাতক ইব্রাহিমকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।