ঢাকা ১১:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম ::
গার্ল গাইড্স এসোসিয়েশন সিলেট অঞ্চলের উদ্যোগে বিশ্ব চিন্তা দিবস পালন শুধু রোহিঙ্গা না, পুরো বার্মা একটা জটিল জিনিস ডয়চে ভেলের এক অনুষ্ঠানে ড. ইউনূস ছাতকে সুবিধা বঞ্চিত একজনকে রোটারী ক্লাব অব সিলেট মিডটাউনের ঘর হস্থান্তর মুরারিচাঁদ কলেজের ইতিহাস ও ঐতিহ্য অনুষঙ্গ এবং প্রাসঙ্গিক ভাবনা শীর্ষক মুক্ত আলোচনা জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হতে চায় ফিলিস্তিন; ফিলিস্তিন প্রতিনিধি দলের প্রধান রিয়াদ মনসুর সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত ভারতের শিলচরের সাহিত্য-সংস্কৃতি কর্মীদের সিলেটে সৌজন্য সাক্ষাৎ ছড়াকার সুফিয়ান আহমদ চৌধুরী ছড়াশিল্পের অনন্য এক দিকপাল: প্রফেসর হারুনুর রশীদ ডাক্তারের পরামর্শে চার মাস কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন না বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ বিবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সাইদুর রহমান রেনুর পিতার নামাজে জানাজা আজ দরগা মাসজিদে

বিপিএলে ঢাকার জার্সি’র ডিজাইন আলোচিত প্রয়াত সাংবাদিক দম্পতি `সাগর-রুনি’র ছেলের !

স্পোর্টস ডেস্ক:
  • আপডেট সময় : ০৬:১৪:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২৪ ১২৮ বার পড়া হয়েছে

প্রয়াত সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনির একমাত্র ছেলে মাহির সরোয়ার মেঘ। বাবা মায়ের মৃত্যুর সময়ে ছোট্ট সেই শিশুটি আজ বড় হয়েছে। একযুগ আগে নিহত এই সাংবাদিক দম্পতির ছেলে সংবাদের শিরোনাম হয়েছেন। সেটাও আবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) কল্যানে।

বিপিএলে দুর্দান্ত ঢাকার জার্সির ডিজাইন করেছেন মেঘ। গত বছর ‘ও’ লেভেল শেষ করা মেঘ ক্রিকেটের সঙ্গেও যুক্ত হয়ে পরেছেন। শেখ জামাল মাঠে নিয়মিত অনুশীলন করেন মেঘ। পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে নিজেকে বড় করার স্বপ্ন চান মেঘ। তবে ক্রিকেটের পাশাপাশি ডিজাইনের দিকেও চোখ আছে মেঘের।

দুর্দান্ত ঢাকার অফিসিয়াল পেইজ থেকে গতকাল বুধবার জানানো হয়েছে মেঘের ডিজাইনের কথা। গতকাল ট্রফি উন্মোচনের সময়ে দেখা গিয়েছিল ঢাকার জার্সির ঝলক। একপাশে স্বপ্নের পদ্মা সেতুকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। জার্সিতে ছিল গাঢ় নেভি ব্লুসহ কিছু রঙের ভিন্ন ভিন্ন শেড। সঙ্গে সোনালী এবং নীল রঙকেও সংযুক্ত করা হয়েছে। বিপিএলের এবারের থিমের সঙ্গে মিল রেখে হাতের দিকে আছে নকশাও।

এর আগে গেলবছর শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের ফুটবল জার্সির ডিজাইন করেছিলেন মেঘ। সেবার জানিয়েছিলেন, ক্রিকেটের পাশাপাশি ডিজাইন করতেও ভালো লাগে তার।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি পশ্চিম রাজাবাজারের নিজ বাসায় হত্যাকাণ্ডের শিকার হন মাছরাঙা টিভি’র বার্তা সম্পাদক সাগর সরওয়ার এবং এটিএন নিউজ’র সিনিয়র রিপোর্টার মেহেরুন রুনি। হত্যাকাণ্ডের পর তখনকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন বলেছিলেন, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হবে। এরপর সরকারের অন্যান্য সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরাও অনেক আশ্বাস দিয়েছিলেন।

তবে প্রায় একযুগ পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত মামলার তদন্ত প্রতিবেদনই জমা পড়েনি। পুলিশের দপ্তর ঘুরে বর্তমানে এই মামলার তদন্তভার পেয়েছে র‍্যাব। মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমার তারিখ পিছিয়েছে শতাধিকবার।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

বিপিএলে ঢাকার জার্সি’র ডিজাইন আলোচিত প্রয়াত সাংবাদিক দম্পতি `সাগর-রুনি’র ছেলের !

আপডেট সময় : ০৬:১৪:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২৪

প্রয়াত সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনির একমাত্র ছেলে মাহির সরোয়ার মেঘ। বাবা মায়ের মৃত্যুর সময়ে ছোট্ট সেই শিশুটি আজ বড় হয়েছে। একযুগ আগে নিহত এই সাংবাদিক দম্পতির ছেলে সংবাদের শিরোনাম হয়েছেন। সেটাও আবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) কল্যানে।

বিপিএলে দুর্দান্ত ঢাকার জার্সির ডিজাইন করেছেন মেঘ। গত বছর ‘ও’ লেভেল শেষ করা মেঘ ক্রিকেটের সঙ্গেও যুক্ত হয়ে পরেছেন। শেখ জামাল মাঠে নিয়মিত অনুশীলন করেন মেঘ। পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে নিজেকে বড় করার স্বপ্ন চান মেঘ। তবে ক্রিকেটের পাশাপাশি ডিজাইনের দিকেও চোখ আছে মেঘের।

দুর্দান্ত ঢাকার অফিসিয়াল পেইজ থেকে গতকাল বুধবার জানানো হয়েছে মেঘের ডিজাইনের কথা। গতকাল ট্রফি উন্মোচনের সময়ে দেখা গিয়েছিল ঢাকার জার্সির ঝলক। একপাশে স্বপ্নের পদ্মা সেতুকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। জার্সিতে ছিল গাঢ় নেভি ব্লুসহ কিছু রঙের ভিন্ন ভিন্ন শেড। সঙ্গে সোনালী এবং নীল রঙকেও সংযুক্ত করা হয়েছে। বিপিএলের এবারের থিমের সঙ্গে মিল রেখে হাতের দিকে আছে নকশাও।

এর আগে গেলবছর শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের ফুটবল জার্সির ডিজাইন করেছিলেন মেঘ। সেবার জানিয়েছিলেন, ক্রিকেটের পাশাপাশি ডিজাইন করতেও ভালো লাগে তার।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি পশ্চিম রাজাবাজারের নিজ বাসায় হত্যাকাণ্ডের শিকার হন মাছরাঙা টিভি’র বার্তা সম্পাদক সাগর সরওয়ার এবং এটিএন নিউজ’র সিনিয়র রিপোর্টার মেহেরুন রুনি। হত্যাকাণ্ডের পর তখনকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন বলেছিলেন, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হবে। এরপর সরকারের অন্যান্য সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরাও অনেক আশ্বাস দিয়েছিলেন।

তবে প্রায় একযুগ পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত মামলার তদন্ত প্রতিবেদনই জমা পড়েনি। পুলিশের দপ্তর ঘুরে বর্তমানে এই মামলার তদন্তভার পেয়েছে র‍্যাব। মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমার তারিখ পিছিয়েছে শতাধিকবার।