ঢাকা ০৯:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম ::
জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হতে চায় ফিলিস্তিন; ফিলিস্তিন প্রতিনিধি দলের প্রধান রিয়াদ মনসুর সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত ভারতের শিলচরের সাহিত্য-সংস্কৃতি কর্মীদের সিলেটে সৌজন্য সাক্ষাৎ ছড়াকার সুফিয়ান আহমদ চৌধুরী ছড়াশিল্পের অনন্য এক দিকপাল: প্রফেসর হারুনুর রশীদ ডাক্তারের পরামর্শে চার মাস কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন না বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ বিবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সাইদুর রহমান রেনুর পিতার নামাজে জানাজা আজ দরগা মাসজিদে সিলেটে ডিবি’র জুয়া বিরোধী বিশেষ অভিযানে জুয়া খেলার সামগ্রীসহ ৬ জুয়ারি আটক সিলেটে ডিবি পুলিশের পৃথক দুটি অভিযানে জুয়া খেলার সামগ্রীসহ ২২ জন জুয়ারি গ্রেফতার গাজীপুরের কোনাবাড়িতে ঝুট গুদামে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচ ইউনিট গাজীপুরে পারিবারিক বিরোধের জেরে মেয়েকে বাবার হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা

বই বের করতে দেরী করায় শিক্ষক বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীর চুল টেনে ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ !

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৪:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৪ ৭৯ বার পড়া হয়েছে

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ব্যাগ থেকে বই বের করতে দেরি হওয়ায় ফারহানা খাতুন নামে এক শিশু শিক্ষার্থীর দুই পাশের চুল টেনে ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ রতনের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে ওই শিক্ষার্থীর বাবা জিল্লুর রহমান কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে শিশু শিক্ষার্থীর বাবা জিল্লুর রহমান উল্লেখ করেছেন, তার মেয়ে দূর্গাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির একজন ছাত্রী। বুধবার (২৪ জানুয়ারি) ক্লাস চলাকালীন সময়ে ব্যাগ থেকে বই বের করতে দেরি করায় শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ রতন তার মেয়ের দুই কানের উপর থাকা চুল ধরে উঁচু করে রাখেন। একপর্যায়ে চুল ছিঁড়ে ওই শিক্ষার্থী মাটিতে পড়ে যায় এবং অসুস্থ হয়ে পড়ে।

জিল্লুর রহমান জানান, তার মেয়েকে সামান্য কারণে অমানুষিক নির্যাতন করেছেন শিক্ষক রতন। আবার নির্যাতনের পর মেয়ের হাতে ৫ টাকা দিয়ে ওই শিক্ষক বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য বলে। এমন নির্যাতন করলে শিশুরা স্কুলের প্রতি আগ্রহ হারাবে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে শাস্তির দাবি করেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ রতন বলেন, ওই শিক্ষার্থীকে আমি অনেক স্নেহ করি। তাকে আদর করতে গিয়ে তার চুলে একটু টান লেগে এমনটা হয়েছে। তাছাড়া সামাজিক দ্বন্দ্বের কারণে আমার নামে এমন অভিযোগ করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মাহমুদ হাসান বলেন, এমন অভিযোগ পেয়ে ইতিমধ্যে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলেছি। আগামী রোববার (২৮ জানুয়ারি) আমি নিজে বিদ্যালয়ে যাবো এবং অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ থ্য প্রমাণ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

বই বের করতে দেরী করায় শিক্ষক বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীর চুল টেনে ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ !

আপডেট সময় : ০৮:৩৪:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৪

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ব্যাগ থেকে বই বের করতে দেরি হওয়ায় ফারহানা খাতুন নামে এক শিশু শিক্ষার্থীর দুই পাশের চুল টেনে ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ রতনের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে ওই শিক্ষার্থীর বাবা জিল্লুর রহমান কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে শিশু শিক্ষার্থীর বাবা জিল্লুর রহমান উল্লেখ করেছেন, তার মেয়ে দূর্গাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির একজন ছাত্রী। বুধবার (২৪ জানুয়ারি) ক্লাস চলাকালীন সময়ে ব্যাগ থেকে বই বের করতে দেরি করায় শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ রতন তার মেয়ের দুই কানের উপর থাকা চুল ধরে উঁচু করে রাখেন। একপর্যায়ে চুল ছিঁড়ে ওই শিক্ষার্থী মাটিতে পড়ে যায় এবং অসুস্থ হয়ে পড়ে।

জিল্লুর রহমান জানান, তার মেয়েকে সামান্য কারণে অমানুষিক নির্যাতন করেছেন শিক্ষক রতন। আবার নির্যাতনের পর মেয়ের হাতে ৫ টাকা দিয়ে ওই শিক্ষক বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য বলে। এমন নির্যাতন করলে শিশুরা স্কুলের প্রতি আগ্রহ হারাবে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে শাস্তির দাবি করেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ রতন বলেন, ওই শিক্ষার্থীকে আমি অনেক স্নেহ করি। তাকে আদর করতে গিয়ে তার চুলে একটু টান লেগে এমনটা হয়েছে। তাছাড়া সামাজিক দ্বন্দ্বের কারণে আমার নামে এমন অভিযোগ করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মাহমুদ হাসান বলেন, এমন অভিযোগ পেয়ে ইতিমধ্যে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলেছি। আগামী রোববার (২৮ জানুয়ারি) আমি নিজে বিদ্যালয়ে যাবো এবং অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ থ্য প্রমাণ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।