ঢাকা ০৫:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম ::
মেলান্দহে ট্রাক ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে সাত বৎসরের এক শিশু নিহত সিলেটে ডিবি পুলিশের অভিযানে জুয়া খেলার সামগ্রীসহ ১০ জন জুয়ারী গ্রেফতার সিলেটে পুলিশের অভিযানে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ ১ জন আটক লালাবাজার বিদ্যালয় ও কলেজের ‘রূপকল্প ২০৩০’ প্রণয়নে সুধীজনের মতবিনিময় সিলেটের আখালিয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু: স্বজনদের আহাজারি যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে সিলেটের দুরুদ মিয়া রনেল সিলেট জেলা ছাত্রলীগ ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে সেনাবাহিনীর একটি ইউনিটের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা ! সিলেটে ডিবির অভিযানে অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত ৯ জন গ্রেফতার সিলেটে আর্মড পুলিশের অভিযানে ২টি চোরাই মোটরসাইকেলসহ ১জন আটক

"একুশের ভাষার চেতনাকে ধারণ করে বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে শিক্ষার্থীদের ভূমিকা রাখার বিকল্প নেই"- অধ্যক্ষ আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার 

উইমেন্স মডেল কলেজে উৎযাপিত হলো মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’২৪

তারেক আহমদ খান
  • আপডেট সময় : ১০:২৭:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৬২ বার পড়া হয়েছে
Spread the love

উইমেন্স মডেল কলেজের অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার বলেন, একুশ আমাদের এগিয়ে যাওয়ার, অধিকার আদায়ের প্রেরণা; একুশ আমাদের স্বাধীনভাবে বেঁচে থাকার শক্তি। এজন্য একুশের বিভিন্ন আচার পালনের সাথে সাথে আমাদেরকে জানতে হবে ভাষা আন্দোলনের প্রকৃত ইতিহাস। করতে হবে ভাষার সঠিক চর্চা। ‘৫২র ভাষা আন্দোলনে যেভাবে শিক্ষার্থীরা নেতৃত্ব দিয়েছিল- ঠিক একইভাবে তোমাদেরকে আগামীর সোনার বাংলা গড়তে নেতৃত্ব দিতে হবে। বাংলা ভাষাকে বিশ্বদরবারে প্রতিষ্ঠিত করতে আমাদের চিন্তার জগতে প্রথমে বাংলাকে স্থান দিতে হবে। উইমেন্স মডেল কলেজ তার শিক্ষার্থীদের জন্য পাঠ্যপুস্তকের বাইরে বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ক বইপত্র পড়তে পাঠাগারের ব্যবস্থা রেখেছে।

মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে কলেজের অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার এসব কথা বলেন।

২১শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, রোজ বুধবার, সকাল ৮:৩০ ঘটিকায় উইমেন্স মডেল কলেজে অনুষ্ঠিত হয় মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের বিভিন্ন আয়োজন।

শুরুতেই শিক্ষার্থীদের সমাবেশের মাধ্যমে পুরোদিনের আনুষ্ঠানিকতার যাত্রা শুরু হয়।

অধ্যক্ষ আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদারের নেতৃত্বে শিক্ষকবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীগণের র‍্যালি সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে ভাষা শহিদদের স্মৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এরপর, কলেজ ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয় ৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণি ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং একই সাথে অনুষ্ঠিত হয় স্কুল ও কলেজ শাখার শিক্ষার্থীদের আবৃত্তি প্রতিযোগিতা।

সবশেষে অনুষ্ঠিত হয় মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা এবং পুরস্কার বিতরণী। 

উইমেন্স মডেল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী উম্মে আফসানা নীলার সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন উইমেন্স মডেল কলেজের অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উইমেন্স মডেল কলেজের চিফ একাডেমিক কো-অর্ডিনেটর ও সিনিয়র প্রভাষক জনাব জাকিয়া সুলতানা, কলেজ শাখার কো-অর্ডিনেটর ও সিনিয়র প্রভাষক জনাব কাজী মাহবুবুল আলম মঞ্জুর, স্কুল ইনচার্জ ও সিনিয়র প্রভাষক জনাব মরিয়মু ন্নেছা মল্লিকা এবং অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ।  

আলোচনা সভার শুরুতে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখে- মুনতাহা আফরিন, চৌধুরী মাহজাবিন হক মীম, সাথী আক্তার, মেরিন জামান। শিক্ষকদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন স্কুল শাখার সিনিয়র শিক্ষক জনাব জোবেদা বর চৌধুরী, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক জনাব ওয়াসিম আকরাম এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক জনাব হেলাল হামাম। এরপর বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার। সবশেষে অনুষ্ঠানের সভাপতি ও শিক্ষকবৃন্দ চিত্রাঙ্কন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তোলে দেয়ার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। 
চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় ক-গ্রুপে (৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণি) প্রথম স্থান অর্জন করে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী আতকিয়া রহমান, দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে একই শ্রেণির শিক্ষার্থী রুদ্রা ধর এবং তৃতীয় স্থান অর্জনকারী সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসফিয়া তাসনিম ফাবিহা।

খ-গ্রুপে (১১শ-১২শ শ্রেণি) চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করে জুবাইদা আরফুলন্নেসা আফসার জুলি, দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে খাদিজা মোহাম্মদ সালাম এবং তৃতীয় স্থান অর্জন করে সুস্মিতা দেব তিথি।

আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করে মাহবুবা আক্তার তন্বী। দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে অর্পিতা নাসরিন মাঈশা। যৌথভাবে তৃতীয় স্থান অর্জন করে মুনতাহিনা তানহা এবং নাফিজা জাহান নোহা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

"একুশের ভাষার চেতনাকে ধারণ করে বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে শিক্ষার্থীদের ভূমিকা রাখার বিকল্প নেই"- অধ্যক্ষ আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার 

উইমেন্স মডেল কলেজে উৎযাপিত হলো মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’২৪

আপডেট সময় : ১০:২৭:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
Spread the love

উইমেন্স মডেল কলেজের অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার বলেন, একুশ আমাদের এগিয়ে যাওয়ার, অধিকার আদায়ের প্রেরণা; একুশ আমাদের স্বাধীনভাবে বেঁচে থাকার শক্তি। এজন্য একুশের বিভিন্ন আচার পালনের সাথে সাথে আমাদেরকে জানতে হবে ভাষা আন্দোলনের প্রকৃত ইতিহাস। করতে হবে ভাষার সঠিক চর্চা। ‘৫২র ভাষা আন্দোলনে যেভাবে শিক্ষার্থীরা নেতৃত্ব দিয়েছিল- ঠিক একইভাবে তোমাদেরকে আগামীর সোনার বাংলা গড়তে নেতৃত্ব দিতে হবে। বাংলা ভাষাকে বিশ্বদরবারে প্রতিষ্ঠিত করতে আমাদের চিন্তার জগতে প্রথমে বাংলাকে স্থান দিতে হবে। উইমেন্স মডেল কলেজ তার শিক্ষার্থীদের জন্য পাঠ্যপুস্তকের বাইরে বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ক বইপত্র পড়তে পাঠাগারের ব্যবস্থা রেখেছে।

মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে কলেজের অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার এসব কথা বলেন।

২১শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, রোজ বুধবার, সকাল ৮:৩০ ঘটিকায় উইমেন্স মডেল কলেজে অনুষ্ঠিত হয় মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের বিভিন্ন আয়োজন।

শুরুতেই শিক্ষার্থীদের সমাবেশের মাধ্যমে পুরোদিনের আনুষ্ঠানিকতার যাত্রা শুরু হয়।

অধ্যক্ষ আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদারের নেতৃত্বে শিক্ষকবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীগণের র‍্যালি সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে ভাষা শহিদদের স্মৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এরপর, কলেজ ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয় ৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণি ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং একই সাথে অনুষ্ঠিত হয় স্কুল ও কলেজ শাখার শিক্ষার্থীদের আবৃত্তি প্রতিযোগিতা।

সবশেষে অনুষ্ঠিত হয় মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা এবং পুরস্কার বিতরণী। 

উইমেন্স মডেল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী উম্মে আফসানা নীলার সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন উইমেন্স মডেল কলেজের অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উইমেন্স মডেল কলেজের চিফ একাডেমিক কো-অর্ডিনেটর ও সিনিয়র প্রভাষক জনাব জাকিয়া সুলতানা, কলেজ শাখার কো-অর্ডিনেটর ও সিনিয়র প্রভাষক জনাব কাজী মাহবুবুল আলম মঞ্জুর, স্কুল ইনচার্জ ও সিনিয়র প্রভাষক জনাব মরিয়মু ন্নেছা মল্লিকা এবং অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ।  

আলোচনা সভার শুরুতে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখে- মুনতাহা আফরিন, চৌধুরী মাহজাবিন হক মীম, সাথী আক্তার, মেরিন জামান। শিক্ষকদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন স্কুল শাখার সিনিয়র শিক্ষক জনাব জোবেদা বর চৌধুরী, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক জনাব ওয়াসিম আকরাম এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক জনাব হেলাল হামাম। এরপর বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যক্ষ জনাব আব্দুল ওয়াদুদ তাপাদার। সবশেষে অনুষ্ঠানের সভাপতি ও শিক্ষকবৃন্দ চিত্রাঙ্কন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তোলে দেয়ার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। 
চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় ক-গ্রুপে (৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণি) প্রথম স্থান অর্জন করে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী আতকিয়া রহমান, দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে একই শ্রেণির শিক্ষার্থী রুদ্রা ধর এবং তৃতীয় স্থান অর্জনকারী সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসফিয়া তাসনিম ফাবিহা।

খ-গ্রুপে (১১শ-১২শ শ্রেণি) চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করে জুবাইদা আরফুলন্নেসা আফসার জুলি, দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে খাদিজা মোহাম্মদ সালাম এবং তৃতীয় স্থান অর্জন করে সুস্মিতা দেব তিথি।

আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করে মাহবুবা আক্তার তন্বী। দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে অর্পিতা নাসরিন মাঈশা। যৌথভাবে তৃতীয় স্থান অর্জন করে মুনতাহিনা তানহা এবং নাফিজা জাহান নোহা।