ঢাকা ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমাদের ক্ষতি করবে আমরাও তাদের ক্ষতি করবো- নেতানিয়াহু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
  • আপডেট সময় : ১১:১৪:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ৫১ বার পড়া হয়েছে
Spread the love

গাজায় অভিযান চালানোর পাশাপাশি অন্যান্য এলাকায় ইরানের হামলা ঠেকাতে প্রস্তুতি নেয়ার কথা জানিয়েছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

দক্ষিণ ইসরায়েলে একটি বিমান ঘাঁটি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের নেতানিয়াহু বলেন, যে আমাদের ক্ষতি করবে আমরাও তাদের ক্ষতি করবো। প্রতিরক্ষা এবং আক্রমণ উভয় দিক দিয়েই আমরা ইসরায়েলের নিরাপত্তা রক্ষায় বদ্ধপরিকর।
খবর রয়টার্সের।

গত ১ এপ্রিল সিরিয়ায় ইরানের দূতাবাসে এক হামলায় একজন জ্যেষ্ঠ ইরানী কমান্ডার এবং ১২ জন ইরানী কর্মী নিহত হওয়ার পর থেকেই ইরানের হামলার আশঙ্কা করছে ইসরায়েল। ইসরায়েল হামলার দায় স্বীকার না করলেও ইরানের প্রধান ধর্মীয় নেতা আয়াতল্লাহ খামেনি এই ঘটনার জন্য ইসরায়েলকে শাস্তি দেয়ার কথা জানিয়েছেন।

ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ড্যানিয়েল হাগারি জানান, আমরা আমাদের নাগরিকদের কোনো বিশেষ প্রস্তুতি নিতে না বললেও যেকোনো পরিস্থিতির জন্য আমরা প্রস্তুত আছি।

নেতানিয়াহুর বক্তব্য এমন সময়ে এলো যখন মধ্য গাজায় ইসরায়েলি সৈন্য এবং যুদ্ধবিমান নিধনযজ্ঞ চালাচ্ছে। দক্ষিণ গাজার রাফাহ শহরে আক্রমণ চালানোর জন্য গাজা থেকে অধিকাংশ সৈন্যকে সরিয়ে নিয়েছে ইসরায়েল।

গাজায় যুদ্ধের পাশাপাশি লেবাননের হিজবুল্লাহর সাথেও সংঘাত চলছে ইসরায়েলের। বৃহস্পতিবার লেবাননের বিভিন্ন এলাকায় হিজবুল্লাহর স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। ধারণা করা হচ্ছে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে হামলার সময় ইরান হিজবুল্লাহকে ব্যবহার করতে পারে।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ইসরায়েলি হামলায় ৬৩ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন এবং ৪৫ জন আহত হয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

আমাদের ক্ষতি করবে আমরাও তাদের ক্ষতি করবো- নেতানিয়াহু

আপডেট সময় : ১১:১৪:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪
Spread the love

গাজায় অভিযান চালানোর পাশাপাশি অন্যান্য এলাকায় ইরানের হামলা ঠেকাতে প্রস্তুতি নেয়ার কথা জানিয়েছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

দক্ষিণ ইসরায়েলে একটি বিমান ঘাঁটি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের নেতানিয়াহু বলেন, যে আমাদের ক্ষতি করবে আমরাও তাদের ক্ষতি করবো। প্রতিরক্ষা এবং আক্রমণ উভয় দিক দিয়েই আমরা ইসরায়েলের নিরাপত্তা রক্ষায় বদ্ধপরিকর।
খবর রয়টার্সের।

গত ১ এপ্রিল সিরিয়ায় ইরানের দূতাবাসে এক হামলায় একজন জ্যেষ্ঠ ইরানী কমান্ডার এবং ১২ জন ইরানী কর্মী নিহত হওয়ার পর থেকেই ইরানের হামলার আশঙ্কা করছে ইসরায়েল। ইসরায়েল হামলার দায় স্বীকার না করলেও ইরানের প্রধান ধর্মীয় নেতা আয়াতল্লাহ খামেনি এই ঘটনার জন্য ইসরায়েলকে শাস্তি দেয়ার কথা জানিয়েছেন।

ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ড্যানিয়েল হাগারি জানান, আমরা আমাদের নাগরিকদের কোনো বিশেষ প্রস্তুতি নিতে না বললেও যেকোনো পরিস্থিতির জন্য আমরা প্রস্তুত আছি।

নেতানিয়াহুর বক্তব্য এমন সময়ে এলো যখন মধ্য গাজায় ইসরায়েলি সৈন্য এবং যুদ্ধবিমান নিধনযজ্ঞ চালাচ্ছে। দক্ষিণ গাজার রাফাহ শহরে আক্রমণ চালানোর জন্য গাজা থেকে অধিকাংশ সৈন্যকে সরিয়ে নিয়েছে ইসরায়েল।

গাজায় যুদ্ধের পাশাপাশি লেবাননের হিজবুল্লাহর সাথেও সংঘাত চলছে ইসরায়েলের। বৃহস্পতিবার লেবাননের বিভিন্ন এলাকায় হিজবুল্লাহর স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। ধারণা করা হচ্ছে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে হামলার সময় ইরান হিজবুল্লাহকে ব্যবহার করতে পারে।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ইসরায়েলি হামলায় ৬৩ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন এবং ৪৫ জন আহত হয়েছেন।