No icon

উলিপুরে বাল্যবিবাহের আসরে অভিযান ; ১২ জনের জেল-জরিমানা

কুড়িগ্রাম (উলিপুর) সংবাদদাতাঃ

কুড়িগ্রামের উলিপুরে অভিযান চালিয়ে দুইটি বাল্যবিয়ের আসর ভেঙে দিয়েছে পুলিশ। এ সময় বর, কাজী এবং ইমামসহ ১২জনকে আটক করা হয়েছে। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আব্দুল কাদের ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ৮ জনকে ৬ মাস করে কারাদণ্ড ও ৪ জনকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন।


ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার রাতে উলিপুর পৌর কাজী অফিস ও উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের কবিরাজপাড়া গ্রামে। আটককৃতদের শনিবার কুড়িগ্রাম জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


জানা গেছে, উপজেলার পূর্বশিববাড়ি খালিভিটা গ্রামের আবু বক্করের পুত্র আলমগীর হোসেনের সঙ্গে পুর্ব শিববাড়ী গ্রামের রফিকুল ইসলামের কন্যা তামান্না বেগমের (১৩) বিয়ের দিন ধার্য্য করা হয়। সে মোতাবেক গত শুক্রবার রাতে পৌর কাজী অফিসে বিয়ে দেওয়ার জন্য উভয় পরিবারের লোকজন জড়ো হয়। এ খবর পেয়ে উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে বর-কনে, নিকাহ রেজিস্ট্রার ও ইমামসহ উভয় পক্ষের ৯ জনকে আটক করে।


উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আব্দুল কাদের ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে ৮ জনের প্রত্যককে ৬ মাসের জেল ও ১ জনের ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। আটককৃতরা হলো, বর আলমগীর হোসেন (২৯),কাজী নুরুল হুদা লিমন (৫২), ভূয়া কাজী শফিকুল ইসলাম (৩৮), ইমাম মাহমুদুল হাসান (২৪), কনের দুলাভাই ফারুক মিয়া (২৫) ও আমিনুল ইসলাম (২৪), কনের চাচা আলাল মিয়া (২৫), বরের মামা নজরুল ইসলামকে (৩৮) ৬ মাস করে কারাদণ্ড ও বরের দুলাভাই আলমগীর হোসেনকে (৩৬) ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত।


তামান্না বেগম উলিপুর মদিনাতুল উলুম দাখিল মাদরাসার ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তাকে বাবা মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।


অপরদিকে উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের কবিরাজপাড়া গ্রামে বাল্যবিয়ের আসরে অভিযান চালিয়ে বরের দুলাভাই নজরুল ইসলাম(২৭) ও রফিকুল ইসলাম(৪০) এবং কনের দুলাভাই জামাদুর রহমানকে (৪০) আটক করলেও অন্যরা পালিয়ে যায়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।


সূত্রঃ ইত্তেফাক/নূহু

Comment As:

Comment (0)