No icon

জনদূর্ভোগের অপর নাম বাজুয়া- দিগরাজ খেয়া ঘাট

স্বপন কুমার রায়, খুলনা জেলা প্রতিনিধিঃ

দক্ষিন খুলনার দাকোপের বাজুয়া খুটাখালী- দিগরাজ খেয়া ঘাটটি আন্ত জেলা অন্তভুক্ত হওয়ার দরুন ঘাটটির সংস্কার এর কোন উদ্যোগ লক্ষ করা যাচ্ছেনা।ঘাটটির একপারে খুলনা জেলার দাকোপের বাজুয়খুটাখালী খেয়া ঘাট অন্য পার বাগেরহাট জেলার দিগরাজ খেয়াহাট । যদিও এই পারাপারের ঘাটটি আন্তজেলা অন্তর্ভুক্ত হওয়ার দরুন বিভাগীয় কমিশনার খুলনার  কার্য্যালয় থেকে দরপত্রের মাধ্যমে প্রতি বছর ইজারা প্রদান করা হয় কিন্তু এ বছর অতিরিক্ত মুল্যবৃদ্ধি হওয়ার দরুন দরপত্র আহবানে কেউ অংশ নেইনি। এ কারনে বিভাগীয় কমিশনার অফিস থেকে দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ব্যবস্হা গ্রহন করতে পারেননি। ফলে ঘাটটি দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর কার্য্যলয় থেকে ডাকের মাধ্যমে বা খাস কালেকশন চলছে।

ইতিমধ্যে দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃআবদুল ওয়াদুদ সরোজমিনে খেয়াঘাটের দুপারে পরিদর্শন করেছেন।  এই ঘাট দিয়ে একটি অংশের লক্ষধিক মানুষ জেলাশহর খুলনা সহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করে থাকে। 

জরুরী মুমুর্ষ রোগী, বৃদ্ধ শিশু নারী চলাচলে কতটা দূর্ভোগ পোহাতে হয় তারই বাস্তবচিত্র এটি। জোয়ার এলেই প্লাবিত হয় এই ঘাট এলাকা। পানির মাঝে মোটর সাইকেল গুলো নিরুপায় হয়ে অনুমান নির্ভর চলতে গিয়ে অনেক সময় ভাঙাচোরা ভাঙ্গা বাঁশের তৈরী সিড়ি দিয়ে উঠা নামা করতে গর্তের মাঝে পড়ে যায়। এমন কি ভাটার সময় মহিলা পুরুষদের হাটু পযর্ন্ত কাপড় উঠিয়ে ট্রলারে উঠতে এর ফলে প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে  দূর্ঘটনা। 

জনগুরুত্বপূর্ন এই ঘাটের  সংস্কারে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন ঘাট ব্যবহার কারী ভুক্তভোগী জনমানুষ।

 

Comment As:

Comment (0)